‘টিভিসহ সব জায়গায় দেখলাম আমি পাস , হঠাৎ দেখি ফেল’

রাজধানীর প্রবেশমুখ খ্যাত যাত্রাবাড়ী, ডেমরা ও কদমতলী থানার একাংশ নিয়ে গঠিত ঢাকা-৫ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ট্রাক প্রতীকের মশিউর রহমান মোল্লাকে বিজয়ী ঘোষণা করেছেন বিভাগীয় কমিশনার ও রিটার্নিং অফিসার মো. সাবিরুল ইসলাম। এ খবর শুনে রাত ১টায় নেতাকর্মীদের নিয়ে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে এসেছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হারুনর রশীদ (মুন্না)।

এ সময় তিনি বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, টিভিসহ সব জায়গায় চলে এসেছে আমি জিতলাম, এখন দেখি হারলাম!

রিটার্নিং অফিসারের সঙ্গে সাক্ষাতের পর হারুনর রশীদ (মুন্না) বলেন, ‘আমার যারা কেন্দ্রে এজেন্ট ছিল, তারা রেজাল্ট শিট নিয়ে এসেছিল। রেজাল্ট শিট আমরা যোগ করে দেখেছি, আমরা ৬১৩ ভোটে অগ্রগামী।’

‘আমি আওয়ামী লীগের প্রার্থী, আমি বিজয়ী হয়েছি। আমার দল আওয়ামী লীগ এটা দেখবে। ভোট কারচুপি হয়নি, তবে গণনায় ভুল হয়েছে। সহকারী রিটার্নিং অফিসার ভুল করেছে। আমি ৬১৩ ভোটে জিতেছি। কিন্তু ২৯৭ ভোটে হার দেখানো হয়েছে। ১৮৭টি কেন্দ্রের ভোট পুনঃগণনার দাবি জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, ‘রিটার্নিং অফিসার আমাকে ট্রাইব্যুনালে আপিল করার জন্য বলেছেন। আমি অবশ্যই আপিল করব।’

এ সময় আওয়ামী লীগেন কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট রিয়াজুল কবির কাওসার সঙ্গে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ইসিকে এ বিষয়ে জানিয়েছি। কালকে প্রয়োজনীয় কাগজ নিয়ে এ বিষয়ে ইসিকে জানাব।’

এরপর নেতাকর্মীদের নিয়ে রাত দেড়টায় রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় ত্যাগ করেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হারুনর রশীদ (মুন্না)।

এর আগে, রোববার (৭ জানুয়ারি) রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে বিভাগীয় কমিশনার ও রিটার্নিং অফিসার মো. সাবিরুল ইসলাম বেসরকারিভাবে ভোটের ফল ঘোষণা করেন।

ফল ঘোষণায় দেখা যায়, ট্রাক প্রতীকের মশিউর রহমান মোল্লা ৫০ হাজার ৬৩১টি ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকার প্রার্থী হারুনর রশীদ (মুন্না) পেয়েছেন ৫০ হাজার ৩৩৪টি ভোট। ফলে ট্রাক প্রতীকের মশিউর রহমান মোল্লার কাছে ২৯৭ ভোটে হেরে যান নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হারুনর রশীদ (মুন্না)। এদিকে, আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের কামরুল হাসান ১০ হাজার ৫৭০টি ভোট পেয়েছেন।

নৌকার প্রার্থী হারুনর রশীদ (মুন্না) যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। অন্যদিকে, মশিউর রহমান মোল্লা ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তার বাবা এই আসনের চারবারের সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৪৮, ৪৯, ৫০, ৬০, ৬১, ৬২, ৬৩, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৬৮, ৬৯ ও ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের সমন্বয়ে গঠিত এই আসনে মোট ভোটকেন্দ্র ১৮৭টি।

এই আসনে পুরুষ ভোটার দুই লাখ ৫১ হাজার ৫১৭ জন। আর নারী ভোটার দুই লাখ ৩৯ হাজার ২৪৪ জন। তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) ভোটার রয়েছেন তিনজন। সব মিলিয়ে ভোটার সংখ্যা মোট চার লাখ ৯০ হাজার ৭৬৪ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *