Home / সর্বশেষ / ওর মত লো রেটের ক্রিকেটারকে বাদ দিয়ে খারাপ কিছু করিনি: শ্রীধরণ শ্রীরাম

ওর মত লো রেটের ক্রিকেটারকে বাদ দিয়ে খারাপ কিছু করিনি: শ্রীধরণ শ্রীরাম

শ্রীধরণ শ্রীরাম, হঠাৎ করেই টাইগার ক্রিকেটের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাকে ভারত থেকে উড়িয়ে এনেছে টি-টোয়েন্টি দলের টেকনিক্যাল কোচ হিসেবে।

দায়িত্ব নিয়ে সামলেছেন এশিয়া কাপের দায়িত্ব। এই আসরে দল ভালো করতে না পারলেও এবার নয়া কোচের সামনে বিশ^কাপ টি-টোয়েন্টি। আগামী মাসে অস্ট্রেলিয়াতে বসবে এই আসর।

তার আগে দলে এসেছে বড় পরিবর্তন। অন্যতম সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল অসর নিয়েছেন। এরই পরই টি-টোয়েন্টি ছাড়ার ঘোষণা দেন আরেক অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহীম।

অবশ্য এর আগে থেকেই আলোচনায় ছিল সাবেক অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ দলে থাকবেকিনা! শেষ পর্যন্ত তাকে বাদ দিয়ে দল ঘোষণা করেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

তবে জানা গেছে শ্রীরামের না চাওয়াতেই শেষ পর্যন্ত বিশ^কাপ দলে জায়গা হয়নি রিয়াদের। যদিও এই কোচ দেশের এই সাবেক অধিনায়ককে ভারতের অন্যতম তারকা

ক্রিকেটার এম এস ধবনির সঙ্গে তুলনা করলেও তার বিদায়কে সময়ের প্রয়োজন বলেই জানিয়েছেন সংবাদ মাধ্যমকে। তিনি বলেন, ‘দলে উত্তরাধিকারের পরিকল্পনা থাকতে হবে।

আমি সবসময় রিয়াদকে ধোনির সাথে তুলনা করি, যেভাবে সে দলের হয়ে পারফর্ম করে গেছে। সে ৬ নম্বরে ব্যাট করত, ধোনি যেমন করত ভারতীয় দলে।

সে ম্যাচ শেষ করে আসতো। ধোনিও তো আজীবন চালিয়ে যেতে পারেনি, তাই না? কোন খেলোয়াড়ের পর কে আসবে এই পরিকল্পনা আপনাকে করতে হবে।

মাহমুদউল্লাহর বড় দায়িত্বটা কে নিতে পারে এটা ভাবার সঠিক সময় এখনই। তার জায়গায় নতুনদের না খেলালে তার বিকল্পও আমরা পাব না।’

তবে মাহমদুল্লাহ রিয়াদকে বাদ দেয়া খুব একটা সহজ ছিলনা বলেই অকপটে জানিয়েছেন শ্রীরাম। তবে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়ে খারাপ করেননি বলেও মনে করেন।

তিনি বলেন, ‘এটা মোটেও সহজ কোনো কথোপকথন (মাহমুদুল্লাহর অবসর) ছিল না। বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছে ও। তার প্রতি আমার অশেষ শ্রদ্ধা।

আমাকেই সেই খারাপ লোক হতে হয়েছে যে এই বিষয়টা নিয়ে আলাপ করবে। আমি মনে করি খারাপ কিছু করিনি।’ অভিষেকের পর থেকে ১৫ বছরের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের হয়ে ১২১ ম্যাচ খেলেছেন মাহমুদুল্লাহ।

২৩.৫৭ গড়ে ২ হাজার ১২২ রান করেছেন সাবেক এই টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। তবে বয়স যত বেড়েছে পারফরম্যান্সের ততই অবনতি হয়েছে। সবশেষ ১৬ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১৮.৪ গড়ে ২৬১ রান করেছেন ডানহাতি এই ব্যাটার।

স্ট্রাইকরেট ১০১.৫৫। আর এই কারণে মাহমুদুল্লাহর দল থেকে বাদ পড়া ছিল সময়ের ব্যাপার মাত্র। তবেন জানাগেছে শ্রীরাম যে এক বছরে পরিকল্পনা দিয়েছেন তাতে নেই সাবেক এই অধিনায়ক।’

অন্যদিকে মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ দলে না থাকায় তাদের ঘাটতি কিভাবে পুরণ হয়ে সে নিয়েও প্রশ্নের মুখোমুখি হন নয়া টেকনিক্যাল কোচ শ্রীরামকে।

তবে তিনি স্পষ্ট করেই জানিয়ে দেন দলে যারা আছেন তাদেরস প্রতি তার অগাথ আস্থার কথা। তিনি বলেন, ‘লিটন প্রতিষ্ঠিত একজন ক্রিকেটার। সোহান নিজের খেলা সম্পর্কে জানে।

আমি ইয়াসিরকে দেখতে মুখিয়ে আছি। বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলে যে পাওয়ারের ঘাটতি ছিল সেটা তার আছে। সে এমন একজন যে বল সীমানা ছাড়া করতে পারে, বাউন্ডারি হাঁকাতে পারে।

আমার মনে হয় রাব্বি খুব সম্ভাবনাময় একজন খেলোয়াড়। প্রত্যেক সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে আমার পরামর্শ নেওয়া হয়েছে। আমার মতামত মূল্যায়ন করায় আমি অনেক খুশি।’

এক বছরের চক্তিতে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে শ্রীরাম। তবে এরপর তিনি থাকবেন এমনকোন উদ্দেশ্যও নেই তার বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি নিজের চুক্তি দীর্ঘায়িত করার লক্ষ্য নিয়ে এখানে আসিনি।

আমি এখানে এসেছি যতদিন আমার চুক্তি আছে ততদিন নিজের সেরাটা দিয়ে কাজ করার জন্য। চুক্তি বাড়ানোর কথা ভাবলে হবে না। বাংলাদেশের জন্য আমি নিজের সেরাটাই করব। এই দলের জন্য হৃদয় নিংড়ে দিব।’

বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দল সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), নুরুল হাসান (সহ-অধিনায়ক), সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, লিটন দাস, ইয়াসির আলী, মোস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, তাসকিন আহমেদ, ইবাদত হোসেন, হাসান মাহমুদ, নাসুম আহমেদ, নাজমুল হোসেন শান্ত।
স্ট্যান্ডবাই: শরীফুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন, মেহেদী হাসান, সৌম্য সরকার।

Check Also

লিটন কিংবা সোহান নয়, বাংলাদেশ দলের জন্য স্মার্ট অধিনায়ক খুঁজে পেল বিসিবি

সীমিত ওভারের ফরম্যাটে বাংলাদেশের সবচেয়ে নির্ভর যোগ্য ব্যাটসন্যানের নাম বললে সেখানে আফিফ হোসেনের নাম থাকবেই। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.