Home / সর্বশেষ / সে খুব ভাল ছেলে তাকে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না রাখায় আমার খুব খারাপ লাগছে

সে খুব ভাল ছেলে তাকে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না রাখায় আমার খুব খারাপ লাগছে

মাথা খাটিয়ে ম্যাচের যেকোনো সময় কার্যকর বোলিং করার সামর্থ্য আছে শেখ মেহেদি হাসানের। সে কারণেই হয়তো ভারতের বিপক্ষে

কোনো ম্যাচ না খেলেও দলটির কোচ রাহুল দ্রাবিড়ের নজর কাড়তে পেরেছেন এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার। তাকে নিয়ে বাংলাদেশের টেকনিক্যাল

কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরামের ধারণা তো আরও পরিষ্কার। সেই জানা থেকেই মেহেদিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে রাখতে না পেরে আক্ষেপ ঝরেছে শ্রীরামের কণ্ঠে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বুধবার অস্ট্রেলিয়া আসরের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন।

এর কিছুক্ষণ পর সংবাদ সম্মেলনে আসেন শ্রীরাম। তিনিই মেহেদির বাদ পড়ার ব্যাখ্যা দেন। টি-টোয়েন্টি বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশিদের মধ্যে সেরা-

১৫তম অবস্থানে আছেন মেহেদি। দেশের হয়ে ৩৬ ইনিংসে বল করে ২৬.৯০ গড়ে তিনি নিয়েছেন ৩০ উইকেট। ওভার প্রতি দিয়েছেন সাড়ে ছয়ের একটু বেশি রান, সেরা ৩/১৯।

এখন পর্যন্ত ২১ ইনিংসে হাতে পেয়েছেন নতুন বল। এর মধ্যে ১৩ ম্যাচে করেছেন ইনিংসের প্রথম ওভার। পাওয়ার প্লেতে নিয়মিত বল করার পরও ইকোনমি রেট দারুণ।

এই পারফরম্যান্সের জন্যই হয়তো মেহেদিকে চিনে নিয়েছেন দ্রাবিড়। সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপে এক সংবাদ সম্মেলনে অফ স্পিন নিয়ে বলার সময়, বাংলাদেশের মেহেদির কথাও উল্লেখ করেন ভারত কোচ।

এর সঙ্গে ২৮ ইনিংসে ১২.৩৩ গড়ে করেছেন ২৫৯ রান। স্ট্রাইক রেট ১০৪.৮৫। ব্যাটিংয়ে নিজের সামর্থ্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেভাবে দেখাতে পারেননি তিনি।

তবে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে ৮০ ইনিংসে ১২৫ স্ট্রাইক রেটে ১ হাজার ২৭২ রান তার সক্ষমতারই আভাস দেয়। এমন একজনকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়াটা সহজ নয়।

কেন কঠিন সিদ্ধান্তটি নিতে হলো, জানালেন শ্রীরাম। “আমাদের ১৫ জন খেলোয়াড় নির্বাচন করতে হবে। আমি মেহেদিকে পছন্দ করি।

দলের জন্য সে অসাধারণ এক চরিত্র। তাকে নিয়ে যেটা আমি পছন্দ করি, সে দারুণ প্রাণশক্তি বয়ে আনে।” “কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা খুব একটা স্পিন সহায়ক উইকেটে খেলতে যাচ্ছি না।

আমাদের বাড়তি একটি সিম বোলিং অপশন সঙ্গে রাখতে হবে। আমাদের ভিন্ন ভিন্ন কম্বিনেশনে খেলতে হবে।” অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের সঙ্গে দ্বিতীয় স্পিনার হিসেবে মূল লড়াই ছিল মেহেদি ও নাসুম আহমেদের মধ্যে।

শ্রীরাম জানান, দুটি কারণে সেই লড়াইয়ে পিছিয়ে যান মেহেদি। “আমরা নাসুমকে নিয়েছি কারণ, ভারত ও পাকিস্তানের টপ অর্ডারের সঙ্গে ওর দারুণ ম্যাচ-আপ আছে।

তাই বাঁহাতি স্পিনারই এগিয়ে ছিল। আমাদের (মেহেদী হাসান) মিরাজ আছে, যে অফ স্পিন করতে পারে, মোসাদ্দেক (হোসেন) আছে, সেও অফ স্পিন করতে পারে।”

“এটা খুব দুর্ভাগ্যজনক যে মেহেদি বাদ পড়ে গেছে। তবে সে অসাধারণ একজন ক্রিকেটার। উপমহাদেশে খেলা হলে নিশ্চিতভাবে প্রতিটা দলেই সে থাকবে।”

বাঁহাতি স্পিনার নাসুম ২৩ ইনিংসে ১৮.৫৫ গড়ে নিয়েছেন ২৯ উইকেট। ওভার প্রতি দিয়েছেন ৭.২২ করে রান। বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে তিনি আছেন ২৩ নম্বরে।

Check Also

বিশ্বকাপে সব ম্যাচ হারলেও মোটা অংকের টাকা পাবেন সাকিবরা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরুর আর মাত্র দুই সপ্তাহ বাকি। ১৬ অক্টোবর থেকে অস্ট্রেলিয়ায় বসবে বিশ্বকাপের আসর। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.