সাকিবের আগমন, বোল্ড আউট হলেন দুর্জয়

৭ জানুয়ারী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার চেষ্টায় ছিলেন অনেক সাবেক ক্রীড়াবিদ ও সংগঠক। আজ বিকেলে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৮ আসনে তাদের মনোনীত প্রার্থী ঘোষণা করেছে।

২৯৮ আসনে মনোনীত দলীয় প্রার্থীর মধ্যে অন্যতম চমক বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ও বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। মাগুরা ১, ২ ও ঢাকা ১০ থেকে তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। মাগুরা ১ থেকে তিনি দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। ঐ আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শেখর।

সাকিবের দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্তির দিনে কপাল পুড়েছে বাংলাদেশ অভিষেক টেস্ট দলের অধিনায়ক নাইমুর রহমান দুর্জয়ের। মানিকগঞ্জ ১ আসন থেকে টানা দুইবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য তিনি। এবার দুর্জয়ের ছিল হ্যাটট্রিক মিশন। সেই মিশনে তিনি দলীয় মনোনয়ন পাননি। মানিকগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লিগের মনোনয়ন পেয়েছেন অ্যাড. আব্দুস সালাম। তিনি জেলা আওয়ামীলীগের প্রবীণ কর্মী।

নাইমুর রহমান দুর্জয় পরিবার আওয়ামীলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত সুদীর্ঘকাল থেকে। তার বাবা-মা মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সক্রিয় নেতা ছিলেন। দুর্জয়ও আওয়ামী লিগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন খেলোয়াড়ী জীবন থেকে।

অন্যদিকে সাকিব আল হাসান রাজনীতির সঙ্গে সেভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন না। এখনো তিনি দেশের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক। সদ্য বিশ্বকাপ খেলে এসেছেন। মাঠ ও মাঠের বাইরের নানা কান্ডে তিনি যেমন নন্দিত তেমনি নিন্দিত। তার মনোনয়ন প্রত্যাশা নিয়েও নানা মাধ্যমে নানা আলোচনা হয়েছে। শেষ পর্যন্ত তিনি দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। তার দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দিনে কপাল পুড়ল আরেক অধিনায়ক ও বর্তমান বোর্ড পরিচালক নাইমুর রহমান দুর্জয়ের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *