Home / খেলার খবর / এবাদত হোসেনের ৩ উইকেটে দ্বিতীয় দিন শেষে ১০৯ রানে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ।

এবাদত হোসেনের ৩ উইকেটে দ্বিতীয় দিন শেষে ১০৯ রানে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে দ্বিতীয় দিন শেষে স্বাগতিকদের থেকে ১০৯ রানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশে। গতকাল দিনের শুরুতেই প্রথম ইনিংসে ৩১০ রান করে ইনিংস ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৬২ রান করেন তামিম ইকবাল।

জবাবে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালই করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রেসিডেন্ট একাদশের দুই ওপেনার তেজনারাইন চন্দরপল ও জার্মি সোলোজানো। খালেদ আহমেদ-ইবাদত হোসেনরা সুবিধা করতে পারেননি।

দুজনে চা বিরতিতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত দারুণ খেলেন। চন্দরপলকে আউট করে ১০৯ রানে জুটি ভাঙেন রেজাউর রহমান রাজা। ১১৭ বলে ৫৯ রান করেন চন্দরপল। এরপর ৪৪ রানেরপার্টনারশিপ গড়ে তোলেন টেভিন ইমলাচ এবং জার্মি সোলোজানো।

দলীয় ১৫৫ রানের মাথায় জোড়া ওইকেট তুলে নেন ফাস্ট বোলার এবাদত হোসেন। টেভিন ইমলাচকে ২৭ এবং অ্যালিক অ্যাথানাজে ০ রানে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন এবাদত হোসেন। ৯ রান পরে আবারো উইকেট তুলে নেন এবাদত। রস্টন চেজকে ৬ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি।

শেষ বিকালে আর কোন ক্রিকেট খেলায় নি তারা। দ্বিতীয় দিন শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ২০১ রান সংগ্রহ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রেসিডেন্ট একাদশ। বাংলাদেশের হয়ে এবাদত হোসেন ৫১ রানে ৩ উইকেট লাভ করেন। একটি উইকেট নেন রেজাউর রহমান রাজা।

এর আগের দিনের শুরুতেই তামিম ইকবাল ১৪০ রানে দিন শুরুর পর আরও ২২ যোগ করেন। তামিম ছাড়াও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন শান্ত। এ ছাড়া নুরুল হাসান সোহান ৩৫, মোসাদ্দেক হোসেন ১৯ রান করেন। ১১ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হন ইয়াসির আলী রাব্বী। দুই অঙ্কের ঘর ছুঁতে পারেননি লিটন দাস (৪) ও মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রথম দিনই শূন্যরানে আউট হয়েছিলেন মাহমুদুল হাসান জয় ও মুমিনুল হক। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন লুইস।

১৬ সদস্যের টেস্ট স্কোয়াড: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, ইয়াসির আলী, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেন, রেজাউর রহমান রাজা, মোস্তাফিজুর রহমান, নুরুল হাসান সোহান, তাইজুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলাম।

সিডব্লিউআই প্রেসিডেন্টস একাদশ: ইয়ানিক কারিয়াহ (অধিনায়ক), কলিন আর্চিবল্ড, অ্যালিক অ্যাথানাজে, ত্যাগনারাইন চন্দরপল, ব্রায়ান চার্লস, রস্টন চেজ, টেভিন ইমলাচ, জেরেমি লুইস, প্রেস্টন ম্যাকসুইন, মারকুইনো মাইন্ডলি, জেরেমি সোলজানো, জোমেল ওয়ারিকান।

দুই টেস্টের পর রয়েছে তিনটি টি-টোয়েন্টি এবং তিনটি ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। সিরিজের প্রথম দুটি টি-টোয়েন্টি অনুষ্ঠিত হবে ডমিনিকার উইন্ডসোর পার্কে। তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হবে গায়ানায়।

২, ৩ এবং ৭ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ গুলি। প্রতিটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১১:৩০ মিনিটে। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের সবকটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে গায়ানার জাতীয় স্টেডিয়ামে। ১০, ১৩ এবং ১৬ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে ওয়ানডে ম্যাচ গুলি। তিনটি ওয়ানডে ম্যাচে শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে।

Check Also

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও তেমন ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের

অ্যান্টিগা টেস্টে প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও তেমন ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের। তবে প্রথম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.