Home / খেলার খবর / টেন্ডুলকারের রেকর্ডটা ভেঙে দিতেই পারেন রুট : মার্ক টেলর

টেন্ডুলকারের রেকর্ডটা ভেঙে দিতেই পারেন রুট : মার্ক টেলর

এক সময় আলোচনাটা হতো অ্যালিস্টার কুককে নিয়ে। শচীন টেন্ডুলকারের ১৫৯২১ রান থেকে তাঁর দূরত্ব ছিল ৩৪৪৯ রানের। তবে ৩৩ বছর বয়সেই অবসর নিয়ে সে সমীকরণের নিজেই ইতি টেনেছিলেন কুক। টেস্টে টেন্ডুলকারের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটাও তাই রয়ে গেছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। অবশ্য সাবেক অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মার্ক টেলর মনে করছেন, টেন্ডুলকারের রেকর্ডটা ভেঙে দিতে পারেন কুকের উত্তরসূরি জো রুট।

১৪তম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে ১০ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন রুট। টেন্ডুলকারের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ছুঁতে এখনো প্রায় ৬ হাজার রান প্রয়োজন তাঁর। অবশ্য ১০ হাজার রান ছুঁতে রুটের সময় লেগেছে মাত্র ৯ বছর ১৭১ দিন। ইতিহাসে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে অভিষেকের পর থেকে ১০ বছরের কম সময়ের মধ্যে এ কীর্তি গড়লেন সদ্য সাবেক হয়ে যাওয়া ইংল্যান্ড অধিনায়ক। কুকের সঙ্গে এখন যৌথভাবে সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান (৩১ বছর ১৫৭ দিন) হিসেবে এ মাইলফলক ছোঁয়ার রেকর্ডও হলো তাঁর।

বেশ কিছুদিন ধরেই স্বপ্নের মতো সময় যাচ্ছে রুটের। গত বছর ৬১ গড়ে করেছেন ১৭০৮ রান। এক পঞ্জিকাবর্ষে যেটি তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। গত বছরের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত রুট ব্যাটিং করেছেন ৫৬.২০ গড়ে। ক্যারিয়ারের ২৬টি শতকের ৯টিই এসেছে এ সময়ে।

টেলর বলছেন, এমন সময় কাটানো রুটের পক্ষে আরও অনেক দূর যাওয়া সম্ভব, ‘গত ১৮ মাস বা দুই বছর যাবৎ আমি তাকে অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে ভালো ব্যাটিং করতে দেখছি। সে তার ক্যারিয়ারের চূড়ায় আছে। সুস্থ থাকলে ১৫ হাজার রানের বেশি করার সম্ভাবনা আছে।’

দলীয় ব্যর্থতায় অধিনায়কত্ব থেকে নিজেই সরে দাঁড়ানোর পর এটিই ছিল রুটের প্রথম টেস্ট। আজ লর্ডসে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ উইকেটে জয় এনে দেওয়ার ম্যাচে অবশ্য ঠিকই ম্যাচসেরা হয়েছেন তিনি। তবে অধিনায়কত্বটা যে চাপ ফেলছিল ভালোভাবেই, সেটি স্বীকার করে নিয়েছেন রুট।

রুট বলেছেন, ‘অধিনায়কত্বের সঙ্গে আমার সম্পর্কটা খুবই অস্বাস্থ্যকর হয়ে পড়ছিল। আমার নিজের স্বাস্থ্যের ওপর এটি প্রভাব ফেলছিল। এবং মাঠে এর প্রভাব আসলে রেখে আসতে পারছিলাম না, আমার ব্যক্তিগত জীবনেও এটি প্রভাব ফেলছিল। আমার পরিবারের জন্য, কাছের মানুষদের জন্য, এমনকি আমার নিজের জন্য ব্যাপারটা ঠিক ছিল না।’

সে দিক থেকে রুট ভারমুক্তই হয়েছেন। এতদিন বেন স্টোকস তাঁর জন্য যা করেছেন, এবার সেটি ফিরিয়ে দেওয়ার পালা বলে মনে করেন তিনি, ‘সামনে এগিয়ে যেতে এটা বড় প্রেরণা হিসেবে কাজ করবে আমার জন্য। বিশেষ করে আমার নেতৃত্বে বেন যে সব অভাবনীয় কাজ করেছে। ক্যারিয়ারের পরের ধাপে এখন আমার জন্য দারুণ সুযোগ, তার জন্য কিছু করার। অবশ্য সে যা করেছে, তেমন কিছু করতে পারব বলে মনে হয় না। তবে চেষ্টা করব অবশ্যই। আজ করতে পেরে ভালো লাগছে।’

অবশ্য রুট যদি নিজেকে উপভোগ করতে পারেন, তাহলে টেন্ডুলকারের রেকর্ড ভাঙার ক্ষেত্রে টেলরের কথাটা সত্যি হওয়ার সম্ভাবনা হয়তো বাড়বে।

Check Also

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও তেমন ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের

অ্যান্টিগা টেস্টে প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও তেমন ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের। তবে প্রথম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.