Home / খেলার খবর / কোহলি ফিরলেন চেনা রুপে,খেললেন ৭৩ রানের ইনিংস

কোহলি ফিরলেন চেনা রুপে,খেললেন ৭৩ রানের ইনিংস

অবশেষে ‘সেই’ বিরাট কোহলি ফিরলেন। সেই চিরচেনা কোহলি, যাকে নির্দ্বিধায় বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটারের তকমা দেওয়া যায়। সেই কোহলি যার ব্যাটের দ্যুতিতে একসময় আলোকিত হতো আইপিএল। গুজরাট টাইটানসের বিপক্ষে ৭৩ রানের এক ম্যাচজয়ী ইনিংসে রানখরা কাটিয়ে কোহলি ফিরলেন চেনা রুপে আর তার দলও টিকে রইল প্রতিযোগিতায়। হার্দিক পান্ডিয়ার গুজরাটকে ৮ উইকেটে উড়িয়ে দিয়ে প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রাখল কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল গুজরাটের অধিনায়ক পান্ডিয়া। গুজরাটের হয়ে প্রথম দুই ওভারে ঋদ্ধিমান সাহা (২২ বলে ৩১) ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছিলেন, তবে তাকে রানআউটের ফাঁদে ফেলে সেই ঝড় থামান বেঙ্গালুরু অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। বেঙ্গালুরুর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে এরপর গুজরাটের রান তোলার গতি থমকে যায়। ইনিংসের শেষ দিকে অধিনায়ক পান্ডিয়া (৪৭ বলে ৬২*) এবং আফগান অলরাউন্ডার রশিদ খান (৬ বলে ১৯*) কিছুটা চালিয়ে খেললে লড়াকু সংগ্রহ পায় দলটি।

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই এদিন স্বরুপে দেখা দেন বেঙ্গালুরুর সাবেক অধিনায়ক কোহলি। অধিনায়ক ডু প্লেসির সঙ্গে উদ্বোধনী উইকেটে গড়েন ১১৫ রানের জুটি। মাত্র ৩৩ বলে সাত চার ও এক ছয়ে তুলে নেন এবারের আসরে নিজের দ্বিতীয় অর্ধশতক। আসরে তার প্রথম অর্ধশতকটিও গুজরাটের বিপক্ষেই করেছিলেন, তবে সেদিন তার সেই মাইলফলক দলকে জেতাতে পারেনি, উল্টো ধীরগতিতে খেলে হয়েছিলেন সমালোচিত।

তবে এবার আর তেমনটা হয়নি। দলীয় ১১৫ রানে ডু প্লেসি (৩৮ বলে ৪৪) ফিরে গেলেও কোহলি তার মারকাটারি ব্যাটিং চালিয়ে যান। শেষ পর্যন্ত ইনিংসের ১৭ তম ওভারে রশিদ খানের বলে স্টাম্পড হয়ে ফিরে যাওয়ার আগে ৫৪ বলে করেন এবারের আসরে তার ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৭৩ রান। কোহলি যখন ফেরেন তখন বেঙ্গালুরুর জয় প্রায় নিশ্চিত। নেট রানরেটের হিসাবে দলকে কিছুটা এগিয়ে দিতে শেষদিকে অজি অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল মাত্র ১৮ বলে ৪০* রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে ৮ বল বাকি থাকতেই দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন।

অনেক সমীকরণের এই ম্যাচে বেঙ্গালুরুর জয়ে তাদের নিজেদের প্লে-অফের আশা টিকে রয়েছে, তবে প্লে-অফের দৌড় থেকে ছিটকে গিয়েছে পাঞ্জাব কিংস এবং সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। দিল্লি ক্যাপিটালস তাদের পরবর্তী ম্যাচে যদি মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কাছে হেরে যায় তবেই প্লে-অফ নিশ্চিত হবে বেঙ্গালুরুর, কারণ নেট রানরেটে কোহলিদের চেয়ে দিল্লি বেশ এগিয়ে আছে।

এই জয়ে ১৪ ম্যাচ থেকে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠেছে বেঙ্গালুরু। তবে এখন ১৪ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে থাকা দিল্লি যদি তাদের শেষ ম্যাচে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে জিতে যায়, তাহলে নেট রানরেটে পিছিয়ে থাকার কারণে কপাল পুড়বে কোহলিদের।

Check Also

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও তেমন ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের

অ্যান্টিগা টেস্টে প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটাও তেমন ভালো হয়নি বাংলাদেশ দলের। তবে প্রথম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.